সব ইমাম-মুয়াজ্জিনকে সরকারি বেতন দিতে প্রস্তাব র‌্যাব মহাপরিচালকের

সব ইমাম-মুয়াজ্জিনকে সরকারি বেতন দিতে প্রস্তাব র‌্যাব মহাপরিচালকের

জ’ঙ্গিবাদের বি’রুদ্ধে ল’ড়াই ‘সহ’জ’ করতে সব ম’সজিদের ই’মাম ও মুয়াজ্জিনদের সরকারি বেতন কাঠামোর আওতায় আনার প্রস্তাব করেছেন র‌্যা’বের মহাপরিচালক বেনজীর আহম’দ।

তিনি বলেন, অনেক চেষ্টার পরও সন্ত্রাসবাদ ও চরমপন্থার বি’রুদ্ধে সাধারণ বিবৃতি দিতে বাংলাদেশের ইস’লামী নেতাদেরকে এক জায়গায় আনা যায়নি। আমি ব্যক্তিগতভাবে বিশ্বা’স করি সব ই’মামকে সরকারি চাকরির আওতায় আনা উচিত। তাহলে এটা সহ’জ হবে। তাহলে আম’রা অনেক কিছুই করতে পারব।

বুধবার যুব সমাজের ক্ষমতায়নের মাধ্যমে উগ্রবাদিকরণ ও সহিং’স চরমপন্থা রোধ শিরোনামে রাজধানীতে আয়োজিত এক আলোচনায় তিনি এ মত তুলে ধরেন। রাজধানীর লেকশোর হোটেলে বাংলাদেশ এন্টারপ্রাইজ ইন্সটিটিউটের আয়োজনে আলোচনায় প্রধান অ’তিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবুল মোমেন।

জাতীয় বাজেটের আকারের কথা তুলে ধরে র‌্যা’ব মহাপরিচালক বলেন, “আমা’র মনে হয় ম’সজিদের সংখ্যা ৭ লাখের বেশি হবে না। তাদের বেতন দেওয়ার ক্ষমতা বাংলাদেশ সরকারের আছে।

সন্ত্রাসবাদের বি’রুদ্ধে ল’ড়াইয়ে সকলের সম্পৃক্ততা প্রয়োজন মন্তব্য করতে বেনজীর বলেন, ‘ইস’লামে নিষিদ্ধ সন্ত্রাসবাদ ও মা’দকের বি’রুদ্ধে জুমআর খুতবায় কিছু বলেন না। আম’রা দেখি তারা রাজনৈতিক বক্তব্য দেন। আপনারা (ই’মাম’রা) রাজনীতি করতে চাইলে করেন কিন্তু ম’সজিদকে ব্যবহার করবেন না।

জনগণের সহায়তায় জ’ঙ্গিবাদী সব গোষ্ঠীকে ধ্বংস করতে সক্ষম হয়েছে দাবি করে র‌্যা’ব মহাপরিচালক বলেন, তবে সন্তুষ্টির কোনো সুযোগ নেই। বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ নির্মূল না হলে শুধু বাংলাদেশ থেকে তা উচ্ছেদ করা খুবই কঠিন।

তিনি বলেন, এক্ষেত্রে ইন্টারনেটে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে হাজির হয়েছে। কারণ জ’ঙ্গিবাদ ও চরমপন্থাকে উৎসাহিত করতে ফেইসবুক, টুইটার ও ব্লগে লাখ লাখ বিষয়বস্তু ঘুরে বেড়াচ্ছে। অন্যদিকে নিরুৎসাহিত করার জন্য খুবই আছে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2019 bdsangbad71